মানসিক স্বাস্থ্য-সচেতনতার শুরুর কথা

সিরাজুম মনিরা

৫ মার্চ, ২০২০ , ১২:২৭ অপরাহ্ণ ; 1312 Views

monosamajik pramorsho

স্বাস্থ্য বলতে এক কথায় আমাদের মনে প্রথমেই শারীরিক সুস্থতা বা অসুস্থতার কথাই ভেসে ওঠে। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা স্বাস্থ্যের সংজ্ঞায় কেবল রোগ বা দূর্বলতার বিষয়কে গুরুত্ব দেয় নি বরং শারীরিক, মানসিক ও সামাজিক সুস্থতার একটি সুষ্ঠু অবস্থার কথা নির্দেশ করা হয়েছে।

কিন্তু আমাদের কাছে মানসিক অবস্থা বা মানসিক স্বাস্থ্য একটি উপেক্ষিত বিষয়। এমনকি আমরা এ সম্পর্কে মোটেও সচেতন নই। এই অবহেলা বা অসচেতনতা থেকে মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে তৈরি হয়েছে নানা ভ্রান্ত ও নেতিবাচক ধারণা।

কেউ মানসিক সমস্যার কথা ভুল করে বলে ফেললে আমরা তাকে ‘পাগল’ বলে আখ্যায়িত করি বা কখনও এমনও বলে থাকি যে, সেই ব্যক্তি নাটক/অভিনয় করছে। তাকে নানাভাবে হেয় করে থাকি। আমরা ভুলেই যাই যে, মানসিক মানসিক স্বাস্থ্যও স্বাস্থ্যের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ।তবে আশার কথা হলো, দিন দিন মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে আমাদের সচেতনতা বাড়ছে এবং আমরা এই বিষয়ে বলতে চাই।

এখন যদি আমরা বুঝতে চাই আসলে মানসিক স্বাস্থ্য বলতে কী বুঝায়? মানসিক স্বাস্থ্য বলতে আমরা এমন একটি অবস্থাকে বুঝি যেখানে একজন ব্যক্তি নিজস্ব দক্ষতার বিকাশ ঘটিয়ে দৈনন্দিন জীবনের চাপসমূহ যথাযথভাবে মোকাবেলা করার পাশাপাশি ব্যক্তিগত জীবনে ও সমাজে ফলপ্রসূ অবদান রাখতে সক্ষম হয়।

শারীরিক সমস্যাসমূহ সহজেই আমাদের চোখে পরে কিন্তু মানসিক সমস্যা সম্পর্কে সম্যক ধারণা না থাকায় আমরা এই বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করি না। এর ফলে সমস্যায় আক্রান্ত ব্যক্তির কর্মদক্ষতা কমে যেতে থাকে। এমনকি পাশাপাশি নানা ধরণের শারীরিক লক্ষণও দেখা যায়। আমরা সাধারণ দৃষ্টিতে মানসিক সমস্যার প্রকোপ সম্পর্কে অতটা আন্দাজ করতে পারি না। ২০০৬ খ্রিষ্টাব্দের একটি জরিপ অনুযায়ী বাংলাদেশে শতকরা ১৬ জন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তি এবং শতকরা ১৮ জন শিশু কোন না কোন মানসিক সমস্যায় ভুগছে।

এছাড়া আরেকটি জরিপে দেখা গেছে, সমস্যায় আক্রান্ত ব্যক্তিদের মধ্যে শতকরা ৯০ জন তাদের মানসিক সমস্যার কথা প্রকাশ করতে চায় না এবং চিকিৎসা করাতে চায় না।

এ অবস্থায় আমরা যদি সুখি সমৃদ্ধ দেশ ও জাতি গঠণ করতে চাই তবে আমাদের মানসিক স্বাস্থ্যকে অবহেলা করে কখনোই তা করতে পারব না। এমনকি আমাদের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিও সম্ভব নয়।

তাই আসুন, মানসিক স্বাস্থ্য সম্পর্কে সচেতন হই, এ বিষয়ে কথা বলি।

সিরাজুম মনিরা  ক্লিনিক্যাল সাইকোলজিস্ট, রিজিওনাল ট্রমা কাউন্সেলিং সেন্টার, রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, রংপুর

 

2 responses to “মানসিক স্বাস্থ্য-সচেতনতার শুরুর কথা”

  1. মুস্তাফিজ রহমান says:

    খুবই সুন্দর

  2. Shahriar says:

    Great Though about Mantel repression which is very important matter at present world

মন্তব্য করুন

%d bloggers like this: