শুভ জন্মদিন, সুমন ভাই 

মুগ্ধতা.কম

১৭ আগস্ট, ২০২০ , ১:৫৫ পূর্বাহ্ণ ; 507 Views

শুভ জন্মদিন, সুমন ভাই 

শুভ জন্মদিন, সুমন ভাই  1

মুহাম্মদ মকবুল হুসাইন সুমন

শুভ জন্মদিন, সুমন ভাই

আমার প্রিয় একজন মানুষ কাছের মানুষ মুহাম্মদ মকবুল হুসাইন সুমনের আজ জন্মদিন।

আমাদের সুমন ভাই। সুখে দুঃখে, বিপদে-আপদে দিনের পর দিন বছরের পর বছর যে মানুষটার সাথে সময় কেটেছে, গল্প হয়েছে, তাকে নিয়ে আজ কিছু লিখতে ইচ্ছে হলো। হয়তো এই ইচ্ছাটাই ভালোবাসা৷ যদিও বুঝতে পারিনা ভাইকে আমি কতখানি ভালোবাসি।

২০০৮ সালের দিকে সুমন ভাইয়ের সাথে আমার পরিচয়। তখন তিনি দৈনিক যুগের আলো পত্রলেখক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক। আমি মাত্র নতুন সদস্য। তাদের সেকি দৌড়াদৌড়ি! দেখে আমি অবাক হতাম। সে সময় সুমন ভাইয়ের লেখালেখিও চলতে পুরোদমে। স্থানীয় এবং জাতীয় বিভিন্ন পত্রিকায় নিয়মিত কলাম, উপসম্পাদকীয়, চিঠিপত্র এগুলো লিখতেন। সবগুলোই ছিল মানুষ ও জাতির জন্য দরকারি লেখা। এছাড়া ধর্মীয় বিষয়াদি নিয়ে লিখতেন নিয়মিত। প্রতি রমজানে অপেক্ষায় থাকতাম দৈনিক যুগের আলোয় রমজান প্রতিদিন কলামটি দেখার জন্য। এটি এক মাস ধরে তিনি লিখতেন যত্ন করে। এসবের ফাঁকে আমাদের সময় দিতেন, সংগঠনের নানা কর্মকাণ্ডের আয়োজন করতেন। এইসব করে করেই কীভাবে যেন আমাদের ঘনিষ্ঠতা বেড়ে গেল। একটা বলয়ের মত হয়ে গেলাম কয়েকজন। সেই বলয়ের মধ্যে ঢুকে গেল আরও কয়েকটি নাম। সেইসব নাম উচ্চারণ করলে কোনটা বাদ পড়ে যেতে পারে বলে করছি না! যুগের আলো পত্রলেখক পরিষদের এই বৃত্তের ভেতরে বাইরে থেকে আসা আরও কিছু নাম যুক্ত হলো। তাদের মধ্য থেকে কেউ কেউ দূরে হারিয়ে গেল কেউ আবার বেশি ঘনিষ্ঠ হয়ে গেল। ২০১০ সালে আরও কয়েকজন মিলে সুমন ভাইয়ের নেতৃত্বে প্রতিষ্ঠা করলাম বিভাগীয় লেখক পরিষদ রংপুর।

দিনগুলোকে মনে হচ্ছিল যেন আড্ডা দিয়ে দিয়ে কাটাছিলাম। অনেকটা যেন বছরের পর বছর আমরা একটাই আড্ডা দিয়ে চলেছি। সকল সাংগঠনিক এবং ব্যক্তিগত কাজ যখন একসাথে করতাম, মনে হতো আমরা কোন একটা আনন্দের যজ্ঞে মিলিত হয়েছি। কখনও মনে হতো না কাজ করছি।

এভাবে চলতে চলতে অবস্থা এমন হলো যে, সুমন ভাইয়ের সাথে আমার একটা ব্যক্তিগত সম্পর্ক দাঁড়িয়ে গেল। পরস্পর পারিবারিক সুখ-দুঃখ, বিপদ-আপদ শেয়ার করতাম।

অন্যের সুখ দুঃখে যেমন এগিয়ে যেতাম, নিজেদের সুখ-দুঃখেও পরস্পর এগিয়ে যেতাম, যাই।

আজকাল সুমন ভাই বেশ কিছুটা দূরে চলে গিয়েছেন। আমাদের থেকে, লেখালেখি থেকে, সংগঠন থেকে। কিন্তু ভালোবাসা রেখে গিয়েছেন। এখনও কথা হচ্ছে, যোগাযোগ হচ্ছে, দেখা হচ্ছে, সুযোগ পেলে একসাথে বেড়াতে বের হচ্ছি।

যেনবা উনি চারাগাছ রেখে গিয়েছেন, আমরা তাকে বৃক্ষ করবার চেষ্টায় আছি, সেই বৃক্ষের ছায়ায় বসে থাকবার স্বপ্নে আছি।

যেখানেই থাকুন, ভালো থাকুন সুমন ভাই! শুভ জন্মদিন!

 

মজনুর রহমান 

সম্পাদক, মুগ্ধতা ডট কম

 

  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •