কবিতা Archives - মুগ্ধতা.কম

কবিতা Archives - মুগ্ধতা.কম

আহমেদ অরণ্য

১৬ ডিসেম্বর, ২০২২ , ৮:৪৮ অপরাহ্ণ

এই দেশ

আমার মা।

গায়ে সময় মেখে বয়স বাড়াচ্ছেন। আর চুপটি মেরে বসে, আমাদের শৈশব। পুতুল সাজে বিয়ে—বিয়ে খেলায় সুখ খোঁজেন।

আমাদের পরিবারে—

যে ছোট দৃশ্যগুলো বড় হচ্ছে। ইতিহাস হচ্ছে। দেখা যায়—আমি তার ঘোর শত্রু।

কেনোনা, আপনি খেয়াল করে দ্যাখেন?

বেশ্যার—শরীর—রহস্যে. .. ঝুম—ঝুমিয়ে বৃষ্টি হয়। মাছ বৃষ্টি। যেমন, সামাজিক মাছ আর মেইল সিয়া স্লাগ!

               .  …

                          আহা, 

                                      অ

                                           আ

                                                   ক

                                                         খ  

                                                               ঘ  .  ..।

এই দেশ - আহমেদ আরণ্য
24 Views

মুগ্ধতা.কম

১৬ ডিসেম্বর, ২০২২ , ৪:৩১ অপরাহ্ণ

কুয়াশার চাদরে

এখন কুয়াশার চাদরে
মুখ ঢেকেছে সূর্য সরষে ক্ষেত।
আমার রাত কেটে যায়
যুদ্ধের গল্প শুনে শুনে।

কবি কাব্যে অক্ষর শব্দ বর্নরা
বিষাদ কুয়াশা কেড়ে নিয়ে
আমার নিভু নিভু দ্বীপে ছড়ায়
আশা ভালবাসার সবুজ পাতা।

আমার উঠোনে অতিথি পাখিদের আনাগোনা
আপন মনে পাখিরা গেয়ে উঠে
এই সেই সব হারানোর দেশ যেখানে
মধ্য দুপুরে গাছের নিচে নির্যাতিতার ছায়া ভাসে।

ততই রোমেনার, চকচকে চোখ
নিলার মমতা মাখানো হাসি ফিরে নিয়ে যায়
কৈশোরে সোদা মাটির গন্ধে
আমার মধ্য যৌবনে।

ভাপা পিঠে, পোড়া আলু, রসের হাঁড়ি নিয়ে
কাড়াকাড়ি এখন আর নেই।

এক সময় গল্পের সমাপ্তি আসে
ইথারে ইথারে ভেসে উঠে
কাজী এহিয়ার মতো আলিমের কন্ঠ
কেমন আছো? এইতো
তবু আশা তবু আলো
কবি কাব্যে হাবুডুবু শব্দের ছড়াছড়ি
অক্ষর বিন্যাসে।

কুয়াশার চাদরে
25 Views

মুগ্ধতা.কম

১৬ ডিসেম্বর, ২০২২ , ৪:২৮ অপরাহ্ণ

মুগ্ধতা.কম

১৬ ডিসেম্বর, ২০২২ , ৪:২৬ অপরাহ্ণ

কবিতা আমার বাংলাদেশ

ভোরের রক্তরাঙা সূর্য হতে নিয়েছি টকটকে লাল, 

অবারিত ফসলের মাঠ আর প্রকৃতির মনকাড়া সবুজ, 

হৃদয়ের সবটুকু অনুভূতি, পরিপুর্ণ ব্যকুলতা 

আর সঞ্চিত সোনালি স্বপ্ন দিয়ে সাজিয়েছি 

অনবদ্য কথামালা অপরূপ অলংকারে, 

আমার কবিতা, আমার বাংলাদেশ। 

সমুদ্রের ঢেউ হতে কুড়িয়েছি সাহসী গর্জন, 

পাহাড়ের সুদৃঢ় উচ্চতা হতে উদারতা এক বুক, 

সীমাহীন আকাশের নীল হতে স্বপ্নের আবির, 

আদিগন্ত বিশালতা হতে এনেছি মুক্ত স্বাধীন, 

উড়ে চলা মেঘ হতে এক পশলা প্রশান্তির বৃষ্টি 

আর শব্দ-ছন্দের জলরঙে কেটেছি আঁচড় 

মনের শুভ্রতামাখা সফেদ পাতায় সযতনে, 

আমার কবিতা, আমার বাংলাদেশ। 

দুপুর বিকেল আর গোধূলির বর্ণালী রঙ হতে 

ফোঁটা ফোঁটা মেখে নিয়েছি আগামীর পথচলা, 

রাতের আঁধার হতে নিস্তব্ধতা, জোনাকির আলো, 

গভীর ঘুমের এক বর্ণহীন ভাষা হতে স্বর্গীয় প্রশান্তি, 

স্বপ্নের বিবর্ণ রঙ হতে সংগ্রামী জীবনের আলো, 

সূর্যরাঙা কথামালা, ছন্দময় শব্দের গাঁথুনি, 

আমার কবিতা, আমার বাংলাদেশ। 

কবিতা আমার বাংলাদেশ
Comments Off
17 Views

মুগ্ধতা.কম

১৬ ডিসেম্বর, ২০২২ , ৪:২১ অপরাহ্ণ

প্রহরী 

আমরা আছি যতক্ষণ তোমরা নিরাপদ!

এরপরও যদি জানতে চাও পরিচয়,

নির্দ্বিধায়  বিনয়ের সঙ্গে বলবো,

তোমরা যে বিশাল আকাশের দিকে তাকাও,

যে আকাশের দিকে তাকাতে তাকাতে নিজের ক্ষুদ্রতাগুলো দাও বিসর্জন 

আমরা সেই আকাশের প্রহরী। 

আমাদের পরিচয় জানতে চাও?

আমরা তোমাদের সন্তান।

তোমাদের হৃদয় 

আমাদের দূর্গ। 

তোমরা আত্মমর্যাদার গর্বে 

পৃথিবীতে যে পতাকা উড়াও

আমরা তার প্রহরী। 

আমাদের পরিচয় জানতে চাও? 

আমরা আছি বলে তোমরা বানাতে  পারো তাজমহল 

মহাশূন্যে লেখাতে পারো সভ্যতার নাম।

আমরা আছি বলে তোমরা  ভাবতে পারো অতীত

বর্তমানে আঁকতে পারো ভবিষ্যৎ । 

আমাদের পরিচয় জানতে চাও? 

তোমরা ঘরে ফেরো আমরা ফিরি না

তোমরা পাওয়া না পাওয়ার হিসেব করো

আমরা তা করি না।

তোমাদের ছুটি আছে আমাদের নেই;

তোমাদের আলসেমি আছে ক্লান্তি আছে আমাদের তা-ও নেই 

তোমরা প্রশান্তিতে ঘুমাও বলে আমরা থাকি বিনিন্দ্র। 

আমাদের পরিচয় জানতে চাও? 

যখন নেমে আসে প্রেতাত্মার থাবা

আমরাই  পেতে দিই বুক

এটাই আমাদের ধর্ম। 

রক্ত লাগলে রক্ত দিই, প্রাণ লাগলে প্রাণ।

আমাদের পরিচয় জানতে চাও? 

ত্যাগের উৎসবে এলেই দেখতে পারবে আমাদের মহড়া

ত্যাগের উৎসব ছাড়া আর কোনো উৎসব নেই

ত্যাগের নেশা ছাড়া আর কোনো নেশা নেই

ত্যাগের ইবাদত ছাড়া  নেই আর কোনো ইবাদত ।

আমাদের পরিচয় জানতে চাও? 

আমাদের ত্যাগের উৎসবে এসে দেখ,

তাজা তাজা প্রাণ খোদার কাছে কী ফরিয়াদ করে?

শেষ নিঃশ্বাস পর্যন্ত প্রতিটি প্রাণ যাদের মঙ্গলের জন্য যুদ্ধ করে; তোমরা সেই জনগণ!

এরপরও যদি জানতে চাও পরিচয় 

বলবো, তোমাদের রক্ষা কবচ কোথায়? 

তোমাদের আত্মরক্ষার হাতিয়ার কোথায়? 

খুজঁতে গেলে দেখতে পারবে আমাদের স্মৃতিসৌধ!

প্রহরী
Comments Off
18 Views

মুগ্ধতা.কম

১৬ ডিসেম্বর, ২০২২ , ৪:১৭ অপরাহ্ণ

আমি যুদ্ধ দেখিনি

আমি যুদ্ধ দেখিনি –

শুনেছি বাপ-দাদার মুখে

এর করুন কাহিনি, 

রাস্তায় সারি সারি গাড়িতে করে 

টহল দিচ্ছে পাক বাহিনী। 

আমি যুদ্ধ দেখিনি –

শুনেছি হাজার হাজার নর-নারী

পাড়ি দিচ্ছে ওপারে, 

বরণ করে নিচ্ছে তারা

বাধা দেয়নি একবারে। 

আমি যুদ্ধ দেখিনি –

শুনেছি শতশত লাশ

পরে রয়েছে পথের ধারে,

কুকুর -শৃগাল -শকুনিরা মজা করে

ছিড়ে খাচ্ছে পেট ভরে। 

আমি যুদ্ধ দেখিনি –

শুনেছি মৃত মায়ের বুকের ওপর 

হামাগুড়ি খাচ্ছে অবুঝ সন্তান, 

হায়নাদের লালসার শিকার মা-বোনদের

উপর চলছে বর্বর নির্যাতন। 

আমি যুদ্ধ দেখিনি –

শুনেছি দেশের সূর্য সন্তান 

বীর যোদ্ধাদের বীরত্ব, 

যাদের কঠোর পরিশ্রমের ফলে 

এদেশ হয়েছে স্বাধীন সার্বোভৌমত্ব।

আমি যুদ্ধ দেখিনি –

দেখেছি লক্ষ প্রাণের দামে কেনা  

স্বাধীন বাংলার পতাকা, 

সবুজ ভুমে শহিদের রক্তের তুলিতে 

লাল-সবুজে আঁকা। 

আমি যুদ্ধ দেখিনি –

দেখেছি লাখো শহিদের রক্তে গাঁথা 

স্বাধীনতার প্রতীক স্মৃতিসৌধ,

 যুগ যুগ ধরে লালন করছে 

বাংলার তরুণ -যুবক -বয়োবৃদ্ধ। 

আমি যুদ্ধ দেখিনি
30 Views

মুগ্ধতা.কম

১৬ ডিসেম্বর, ২০২২ , ৪:১৪ অপরাহ্ণ